কক্সবাজার, শুক্রবার, ৪ ডিসেম্বর ২০২০

দফায় দফায় বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল কাবুল


প্রকাশের সময় :২১ নভেম্বর, ২০২০ ৩:৫৫ : অপরাহ্ণ

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে কয়েক দফা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এএফপির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শনিবার কাবুলের কেন্দ্রে সিরিজ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। ওই প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, বিস্ফোরণের শব্দ শুনে মনে হচ্ছিল যেন রকেট হামলা চালানো হয়েছে।

তবে এসব বিস্ফোরণ থেকে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো ক্ষয়ক্ষতি বা হতাহতের বিষয়টি এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। রাজধানীর জনাকীর্ণ এলাকাসহ কাছেই অবস্থিত গ্রিন জোন এবং এর কাছাকাছি আরও একটি অঞ্চল থেকে বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গেছে।

বিস্ফোরণের পর পরই গ্রিন জোন থেকে সতর্কতামূলক অ্যালার্ম বাজানো হয়েছে। ওই অঞ্চলে বিভিন্ন বিদেশি দূতাবাস এবং ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান অবস্থিত। ডজনখানেক আন্তর্জাতিক কোম্পানি এবং তাদের কর্মীদের বসবাস গ্রিন জোনে। তাই ওই এলাকা বেশ সুরক্ষিত। তারপরেও গত কয়েক মাসে গ্রিন জোন ও এর আশেপাশে কয়েক দফা হামলার ঘটনা ঘটেছে।

এদিকে, সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া বেশ কিছু ছবিতে দেখা গেছে, কমপক্ষে দু’টি ভবনে রকেট হামলার কারণে গর্ত হয়ে গেছে। যদিও এসব ছবি এখনও যাচাই করা সম্ভব হয়নি।

কর্মকর্তারা তাৎক্ষণিকভাবে এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেননি। তবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন, শনিবার সকালে দুটি ছোট বোমা বিস্ফোরিত হয়েছে। তিনি জানিয়েছেন, এর মধ্যে একটি বোমা পুলিশের একটি গাড়িতে আঘাত হেনেছে। এতে এক পুলিশ কর্মকর্তা নিহত এবং আরও তিনজন আহত হয়েছেন।

সম্প্রতি উপসাগরীয় দেশ কাতারে তালেবানের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে আফগান সরকার ও মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। তার আগেই দেশটিতে এই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটল।

আফগানিস্তানে গত কয়েক মাস ধরেই এমন সহিংসতার খবর সামনে আসছে। তবে শনিবারের ওই বিস্ফোরণের ঘটনায় এখনও কোনো গোষ্ঠী দায় স্বীকার করেনি। গত সপ্তাহেও গ্রিন জোনে চার দফা রকেট হামলা চালানো হয়েছে। গত মঙ্গলবার ইরাক থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণার এক ঘণ্টারও কম সময়ের মধ্যেই অত্যন্ত সুরক্ষিত গ্রিন জোনে কয়েক দফা রকেট হামলা চালানো হয়।

ইরাকি সেনাবাহিনী এক বিবৃতিতে জানায়, দেশটির সরকারি ভবন এবং কূটনৈতিক এলাকা হিসেবে পরিচিত গ্রিন জোনে নিউ বাগদাদদের আল-আলফ দার জেলা থেকে রকেট হামলা চালানো হয়েছে। তবে ওই বিবৃতিতে হতাহতের খবর নিশ্চিত করা হয়নি। সে সময় নাম প্রকাশ না করা শর্তে ইরাকি কর্মকর্তারা জানান যে, ওই হামলায় কমপক্ষে দু’জন ইরাকি নিরাপত্তা কর্মকর্তা আহত হয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্র সেনা প্রত্যাহার করে নেওয়ার শর্তে আফগানিস্তানে হামলা না চালানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছে তালেবান। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কিছু হামলার জন্য তালেবান বা তাদের সহযোগী বিভিন্ন সংগঠনকেই দায়ী করে আসছে কাবুল প্রশাসন।

গত সেপ্টেম্বরে তালেবান এবং আফগান সরকারের মধ্যে শান্তি আলোচনা শুরু হয়। যদিও এই প্রক্রিয়ার খুব একটা উন্নতি এখনও হয়নি। শান্তি আলোচনা কিছুটা ধীর গতিতেই চলছে।

চলতি সপ্তাহে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র তারিক আরিয়ান জানিয়েছেন, গত ৬ মাসে তালেবান ৫৩টি আত্মঘাতী হামলা এবং ১ হাজার ২৫০টি বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে। এতে ১ হাজার ২১০ বেসামরিকের মৃত্যু হয়েছে এবং আরও ২ হাজার ৫শ জন আহত হয়েছে।

ট্যাগ :

কাবুল