কক্সবাজার, শুক্রবার, ৪ ডিসেম্বর ২০২০

উখিয়ার জালিয়া পালং এ সুপারী পারাকে কেন্দ্র করে ভাইয়ের হাতে রক্তাক্ত বোন


প্রকাশের সময় :২০ নভেম্বর, ২০২০ ২:১৭ : অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক উখিয়াঃ

কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার জালিয়া পালং ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের ডেইল পাড়া গ্রামে মৃত চাঁদ মিয়ার ছেলে নুরুল আলম (৪০) ও অন্যান্য সন্ত্রাসীদের আক্রমনে রক্তাক্ত হয়েছেন আপন বোন আনোয়ারা (২৭) ও তার স্বামী হাজী মুহাম্মদ আলীর ছেলে আবদুল্লাহ (৩৫)। গত ১৭ই নভেম্বর রোজ মংগলবার, আনুমানিক নয় ঘটিকার সময়, বসত বাড়ির সুপারী পারার, বাঁধা দেওয়াকে কেন্দ্র করে অত্র ঘটনা ঘটে।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পিএফ জমির কারনে ভাই নুরুল আলম, তার স্ত্রী রসিদা, নুর জাহান, নুরুল আবসার, নুরুল ইসলাম, জাহেদাসহ অনেকেই সন্ত্রাসী কায়দায় লাঠি, ধারালো অস্ত্র, দা, কিরিস নিয়ে মোঃ আবদুল্লাহ, তার স্ত্রী আনোয়ারা বেগম ও মেয়ে তসলিমা (১৪)-কে অতর্কিতে আক্রমন করে, বিভিন্নভাবে আঘাত করে জখম ও রক্তাক্ত করে।আঘাত প্রাপ্ত আবদুল্লাহর মাথায় ১৪ সেলাই, হাতে ২ সেলাই ও পীঠে লাঠির আঘাতে জর্জরিত করা হয়েছে। আনোয়ারার মাথায় ১০ থেকে ১২ সেলাই করেছে এবং মেয়ে তাসলিমার হাত ভেংগে দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। তারা বর্তমানে কক্সবাজার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। ২০১৭ সালের কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত-২-এ ১০ শতক পিএফ জমির জন্য বাদী হয়ে পুত্র নুরুল আলমকে বিবাদী করে , ৪৯১/২০১৭ একটি ‘সি আর’ মামলা দায়ের করেন। ঐ মামলায় বিজ্ঞ আদালত যাচাই বাছাই করে মা ছফুরা খাতুনকে অংগীকারনামামূলে স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে গত ১৫/০৩/২০১৮ তারিখে ১০ শতক জমি প্রদান করা হয়।
স্থানীয় চেয়ারম্যান নুরুল আমিনের কাছে উক্ত বিষয়ে জানতে চাইলে বলেন, যারা আবদুল্লাহ, আনোয়ারা ও তাদের সন্তানের আক্রমন করছেন, তারা স্বভাবতঃই সন্ত্রাসী টাইপের। তারা স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের কোন কথা বার্তা শুনেনা ও মানে না। স্থানীয় মেম্বার আবুল কালামের সাথে কথা বলে জানা যায় ঠিক চেয়ারম্যান সাহেবের বক্তব্য।

ট্যাগ :