কক্সবাজার, শুক্রবার, ৪ ডিসেম্বর ২০২০

ইটার পর লোটার আঘাতে বিধ্বস্ত মধ্য আমেরিকা


প্রকাশের সময় :১৭ নভেম্বর, ২০২০ ১০:৩৮ : অপরাহ্ণ

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ

ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড় ইটার প্রভাব না কাটতেই আরও বেশি শক্তিশালী ঝড় লোটা আঘাত হেনেছে মধ্য আমেরিকায়। মাত্র দু’সপ্তাহ আগে যে এলাকায় আছড়ে পড়েছিল ক্যাটাগরি চার মাত্রার ঘূর্ণিঝড় ইটা, তার থেকে মাত্র ১৫ মাইল দূরেই তাণ্ডব চালাচ্ছে হারিকেন লোটা।

যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল হারিকেন সেন্টারের (এনএইচসি)তথ্যমতে, চলতি বছর আটলান্টিক মহাসাগরে সৃষ্ট ঝড়গুলোর মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী হয়ে উঠেছিল হারিকেন লোটা। একপর্যায়ে ক্যাটাগরি পাঁচে পৌছেছিল সেটি।

স্থানীয় সময় সোমবার রাত রাড়ে ১০টার দিকে ক্যাটাগরি চার মাত্রার শক্তি নিয়ে নিকারাগুয়ার হাওলওভার শহরে আছড়ে পড়ে ঘূর্ণিঝড় লোটা। এসময় তার বাতাসের গতি ছিল ঘণ্টায় প্রায় ১৫৫ মাইল।

সৌভাগ্যবশত ভূপৃষ্ঠে আঘাত হানার পরপরই শক্তি কমে যায় লোটার। মঙ্গলবার সকাল ৭টার দিকে প্রতিঘণ্টায় ৮৫ মাইল বেগে নিকারাগুয়ার উত্তরাঞ্চল পার হয়েছে ঝড়টি।

এনএইচসি জানিয়েছে, স্থানীয় সময় মঙ্গলবারও নিকারাগুয়ায় তাণ্ডব চালাবে হারিকেন লোটা। এরপর বিকেলে ধীরে ধীরে সেটি হন্ডুরাসের দিকে এগিয়ে যাবে। বুধবার রাত নাগাদ এর শক্তি শেষ হয়ে আসবে বলেও জানিয়েছে সংস্থাটি।

হারিকেন লোটার প্রভাবে হন্ডুরাস, নিকারাগুয়া, গুয়েতেমালা ও বেলিজে প্রবল বৃষ্টিপাত হতে পারে। আগামী বৃহস্পতিবার পর্যন্ত গুয়েতেমালা ও বেলিজে ১০ ইঞ্চি, কখনও কখনও ৩০ ইঞ্চি পর্যন্ত বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এল সালভাদর ও পানামায় বৃষ্টিপাত হতে পারে চার থেকে আট ইঞ্চি, মাঝে মাঝে ১২ ইঞ্চি।

অতিবৃষ্টির কারণে কবলিত এলাকাগুলোতে আকস্মিক বন্যা দেখা দিতে পারে। এসময় পানির উচ্চতা পাঁচ থেকে ১০ ফুট পর্যন্ত বৃদ্ধি পেতে পারে বলে সতর্ক করেছে এনএইচসি।

মাত্র সপ্তাহ দুয়েকের ব্যবধানে মধ্য আমেরিকায় আঘাত হানা দ্বিতীয় শক্তিশালী ঝড় হচ্ছে লোটা। এর আগে গত ৩ নভেম্বর ক্যাটাগরি চার মাত্রার শক্তি নিয়ে অঞ্চলটিতে তাণ্ডব চালিয়েছিল হারিকেন ইটা। এর প্রভাবে ভূমিধস, বন্যার মতো দুর্যোগ সৃষ্টি হয়। এসবে প্রাণ হারিয়েছেন বেশ কয়েকজন, এখনও নিখোঁজ অনেকেই। এছাড়া, ঘরবাড়ি হারিয়েছেন হাজার হাজার মানুষ।

ট্যাগ :