কক্সবাজার, সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০

শিরোনাম

অবশেষে মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান নিহতের ঘটনায় মামলা দায়ের


প্রকাশের সময় :৫ আগস্ট, ২০২০ ১০:০৮ : পূর্বাহ্ণ

আবদুল কাদের :

সাবেক সেনা কর্মকর্তা মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান নিহতের ঘটনায় মামলা দায়েরের জন্য সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-৩, টেকনাফ,এ মামলার আবেদন দাখিল করেছেন তার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস। অভিযোগ সুত্র জানা যায়, প্রধান আসামী ইন্সপেক্টর লিয়াকত আলী, ২ নং আসামী ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, সহ ৯ জন কে আসামী করে ৫ আগস্ট বুধবার সকাল ১০ টার দিকে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-৩, টেকনাফ এ মামলার আবেদন করেন।এ সময় মামলার বাদী হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মেজর সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস সহ পরিবারের আরও কয়েকজন সদস্য।

এ সময় বাদী শারমিন শাহারিয়া ফেরদৌস বলেন,আমার ভাইকে হত্যা করা হয়েছে,এই হত্যাকান্ডে র ন্যায় বিচার পাওয়ার লক্ষ্যে আমরা ইতিমধ্যেই মামলা ফাইল করেছি এবং মহামান্য বিচারককে আমরা অনুরোধ করেছি হত্যাকান্ডের সুষ্ঠু তদন্তের জন্য RAB কে নির্দেশ দেওয়া হোক। বিচারক আমাদের অনুরোধ রেখে RAB কে আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য নির্দেশ প্রদান করেন ।

কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালত,এর এডভোকেট মোহাম্মদ মোস্তফার বরাত দিয়ে আইনজীবি মোহাম্মদ ফয়সাল জানান, মামলার শুনানি শেষে ৭ কর্মদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটলিয়ন (র‌্যাব) কে নির্দেশ দেন বিচারক তামান্না ফারাহ। মামলার শুনানি শেষে সন্তুষ্ট হয়ে এই আদেশ দিয়েছেন বিজ্ঞ বিচারক।মামলার এজহার সুত্রে তিনি আরও জানান, গত ৩১ আগস্ট রাত্রে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ রোডে মেজর সিনহা তাঁর কক্সবাজারমুখী প্রাইভেট কারটি নিয়ে টেকনাফের বাহারছরা শামলাপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের চেকপোস্টে পৌঁছালে গাড়িটি পুলিশ থামিয়ে দেয়।তখন তিনি উপর দিকে তার হাত তুলে তার প্রাইভেট কার থেকে বের হওয়ার সাথে সাথে বাহারছরা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রর ইনচার্জ লিয়াকত আলী পরপর কয়েক রাউন্ড গুলি করে হত্যা করে।

এর আগে মঙ্গলবার সকালে এই সেনা কর্মকর্তা নিহতের ঘটনায় তদন্ত কাজ শুরু করে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি। ওইদিন তদন্ত কমিটির প্রধান চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মিজানুর রহমান কক্সবাজারে পৌঁছে সার্কিট হাউস সম্মেলন কক্ষে তদন্ত কমিটির অন্য সদস্যদের নিয়ে এক সমন্বয় সভার মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে কাজ শুরু করেন।

ট্যাগ :